অবসাদ / Fatigue in Bangla

বলা: গ্লানি, শ্রান্তি

অবসাদ এর লক্ষণ

নিচের বৈশিষ্ট্যগুলো অবসাদ রোগের নির্দেশক:
  • ক্লান্তির অনুভূতি
  • শক্তির অভাব

Get TabletWise Pro

Thousands of Classes to Help You Become a Better You.

অবসাদ রোগের প্রচলিত কারণ

অবসাদ রোগের সবচেয়ে প্রচলিত কারণগুলো নিম্নরূপ:
  • রক্তাল্পতা
  • অ্যালকোহল ব্যবহার
  • মানসিক চাপ
  • জেট বিভাজক বা সক্রিয় বিনোদন
  • বিষণ্নতা
  • ঘুমের অভাব

অবসাদ রোগের অন্যান্য কারণ

অবসাদ রোগের তুলনামূলক কম প্রচলিত কারণগুলো নিম্নরূপ:
  • বিষণ
  • ভিটামিন বা খনিজ ঘাটতি
  • দীর্ঘস্থায়ী রক্ত ক্ষতি
  • অটোইম্মিউন রোগ
  • ক্যান্সার
  • ক্রনিক ক্লান্তি সিন্ড্রোম
  • ড্রাগ ও অ্যালকোহল অপব্যবহার
  • বিষণ্নতা
  • খাওয়ার রোগ
  • Endocrine রোগ
  • fibromyalgia
  • উপসাগরীয় যুদ্ধ সিন্ড্রোম
  • হৃদরোগ
  • এইচ আই ভি
  • বিপাকের জন্মগত ত্রুটি
  • সংক্রামক রোগ
  • বিরক্তিকর পেটের সমস্যা
  • শ্বেতকণিকাধিক্যঘটিত রক্তাল্পতা
  • যকৃতের অকার্যকারিতা
  • lyme রোগ
  • স্নায়বিক রোগ
  • শারীরিক আঘাত
  • ঘুম বঞ্চনা
  • বসন্ত জ্বর
  • ঘাই
  • ইউরিমিয়া

অবসাদ রোগের ঝুঁকির কারণসমূহ

নিম্নোক্ত নির্ণায়কগুলো অবসাদ রোগ হওয়ার সম্ভাবনা বাড়িয়ে দেয়:
  • শারীরিক কার্যকলাপ
  • আবেগী মানসিক যন্ত্রনা
  • একঘেয়েমি
  • ঘুমের অভাব

অবসাদ রোগের প্রতিরোধ

হ্যাঁ, অবসাদ রোগ প্রতিরোধ করা সম্ভব হতে পারে। নিচের পদক্ষেপগুলো নিয়ে এই রোগ প্রতিরোধ করা যেতে পারে:
  • প্রতি রাতে যথেষ্ট ঘুম পেতে
  • একটি সুস্থ এবং সুষম খাদ্য খাওয়া
  • প্রচুর পানি পান কর
  • ব্যায়াম নিয়মিত
  • পরিবর্তন বা আপনার stressors হ্রাস
  • অ্যালকোহল, ড্রাগ এবং নিকোটিন ব্যবহার এড়াতে

অবসাদ এর ঘটনা

ঘটনার সংখ্যা

প্রতি বছর সারা বিশ্বে অবসাদ এর ঘটনার সংখ্যা নিম্নরূপ:
  • খুব সাধারণ> 10 মিলিয়ন ক্ষেত্রে

রোগীদের সাধারণ বয়সসীমা

যেকোন বয়সে অবসাদ হতে পারে।

যে লিঙ্গের মানুষদের মধ্যে এ রোগ বেশী হয়

যেকোন লিঙ্গের মানুষের অবসাদ হতে পারে

অবসাদ রোগ শনাক্ত করার জন্য পরীক্ষা-নিরীক্ষা

অবসাদ রোগ শনাক্ত করার জন্য নিম্নোক্ত পরীক্ষা-নিরীক্ষা করা হয়:
  • শারীরিক পরীক্ষা: ক্লান্তি নির্ণয়
  • রক্ত পরীক্ষা: অ্যানিমিয়া বা সংক্রমণের জন্য পরীক্ষা করা
  • ইউরিনালিসিস: ডায়াবেটিস বা লিভার রোগের লক্ষণ সনাক্ত করা

অবসাদ রোগ শনাক্ত করার জন্য ডাক্তার

অবসাদ রোগের উপসর্গ দেখা দিলে রোগীকে নিম্নোক্ত বিশেষজ্ঞ ডাক্তারের সাথে পরামর্শ করা উচিত:
  • প্রাথমিক স্বাস্থ্য সেবা প্রদানকারী

চিকিৎসা না করলে অবসাদ রোগের ফলে যেসব জটিলতা দেখা দিতে পারে

চিকিৎসা না করলে অবসাদ রোগ থেকে বিভিন্ন জটিলতা দেখা দেয় কিনা জানা নেই

অবসাদ এর ক্ষেত্রে নিজে নিজে সেবা

অবসাদ রোগের চিকিৎসা অথবা ব্যবস্থাপনায় নিজে নিজে সেবা কিংবা জীবনধারায় যেসব পরিবর্তন সহায়ক হতে পারে তার তালিকা নিম্নরূপ:
  • অত্যধিক শারীরিক ক্রিয়াকলাপ এড়িয়ে চলুন: ক্লান্তি কমায়
  • সুস্থ খাওয়ার অভ্যাস গ্রহণ করুন: ক্লান্তির সম্ভাবনা হ্রাস করে

অবসাদ রোগের চিকিৎসার জন্য বিকল্প ওষুধ

অবসাদ রোগের চিকিৎসা কিংবা ব্যবস্থাপনার জন্য সহায়ক হতে পারে এমন কিছু বিকল্প ওষুধ এবং থেরাপি নিম্নরূপ:
  • যোগ বা ধ্যান: আপনার শরীরের relaxes এবং ক্লান্তি হ্রাস

অবসাদ রোগের জন্য রোগীকে চিকিৎসা সহায়তা

অবসাদ রোগীদের জন্য কার্যকর হতে পারে:
  • একটি পরামর্শদাতা সঙ্গে কথা বলা: ক্লান্তি কমিয়ে সাহায্য করে

সর্বশেষ আপডেটের তারিখ

এ পৃষ্ঠায় শেষ পরিবর্তন 1/14/2021 আপডেট করা হয়েছে.
এই পৃষ্ঠায় অবসাদ সম্পর্কিত তথ্য রয়েছে।

Sign Up






ভাগ

Share with friends, get 20% off
Invite your friends to TabletWise learning marketplace. For each purchase they make, you get 20% off (upto $10) on your next purchase.